1. admin@n-vabna.com : Rifan : Rifan Ahmed
  2. mdmohaiminul77@gmail.com : Mohaiminul Islam : Mohaiminul Islam
  3. ischowdhury90@gmail.com : Riazul Islam : Riazul Islam
সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ০১:৪৫ অপরাহ্ন
ঘোষণা:
দেশব্যাপী প্রচার ও প্রসারের লক্ষে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা সিভি পাঠান info.nagorikvabna@gmail.com অথবা হটলাইন 09602111973-এ ফোন করুন।
শিরোনাম :
মুম্বাইয়ে মাদক কিনতে গিয়ে অভিনেত্রী গ্রেফতার পুজা মন্ডপ পরিদর্শন করেছেন কায়েতপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ লিওনেল মেসিকে ছাড়িয়ে গেলেন রামোস ৯০ হাজার টাকা দামের ল্যাপটপ পাচ্ছেন এমপিরা ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের চূড়ান্ত অনুমোদন ধর্ষন কারীদের জন্য আওয়ামীলীগের দরজা চিরদিনের জন্য বন্ধ-ওবায়দুল কাদের দক্ষিণ আইচায় ঘূর্ণিঝড় ‘গতির’আগাতে ঘর বিধ্বস্ত, মানবেতর জীবন যাপন করছে ইমাম হোসেনের পরিবার স্বপ্নের পদ্মা সেতুর ৫.১ কিলোমিটার দৃশ্যমান সিলেটে রায়হান হত্যাকান্ডের মূল আসামী সনাক্ত, খুব শীঘ্রই গ্রেপ্তার- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আমিও সাংবাদিক পরিবারের একজন সদস্য: প্রধানমন্ত্রী

মৃত ঘোষণা করা নবজাতকের বেঁচে ওঠা অলৌকিক: ঢামেক পরিচালক

  • সর্বশেষ পরিমার্জন : শনিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০২০
  • ৪ বার পড়া হয়েছে

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে মৃত ঘোষণার পর কবরস্থানে নেওয়ার পর জীবিত হয়ে উঠার ঘটনাটি দুঃখজনক উল্লেখ করে হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন বলেছেন, এ ঘটনাটি ‘মিরাকল’। তদন্ত শেষে এ ঘটনায় কারো গাফিলতি পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শনিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরের দিকে ঢামেক হাসপাতালের নিজ কক্ষে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা জানান।

ঢামেক পরিচালক নাসির উদ্দিন বলেন, এ ঘটনায় আমি সকালে চার সদস্যের তদন্ত কমিটির সঙ্গে বসেছিলাম। তাদের কাছেও এ বিষয়ে জানার চেষ্টা করেছি। কি কারণে এমনটি হয়েছে। তবে নবজাতকের জন্মের পর সে কোনো কান্নাকাটি ও নড়চড়া করছিল না। চিকিৎসকরা তার হার্টবিটও পাচ্ছিলেন না। আমাদের চিকিৎসকরা অনেক চেষ্টা করেছিল, কিন্তু তার কোনো রেসপন্স পাচ্ছিলো না। তারপর চিকিৎসকরা অক্সিজেন দিয়ে নবজাতকে রেখে দেন। নবজাতকে মৃত ঘোষণা করে ডেথ সার্টিফিকেট দেওয়ার হয়। এরপরই নবজাতকের বাবা তাকে দাফনের জন্য কবরস্থানে নিয়ে যান।

তিনি বলেন, নবজাতকে এখনও নিওনেটাল ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (এনআইসিইউ) ভর্তি রয়েছে। সে আগের চাইতে কিছুটা ইমপ্রুভ হচ্ছে। এক কেজি ওজনের কম নবজাতকটির জন্ম হয়েছে। এজন্য তার অনেক কিছুই ডেভেলপমেন্ট হয়নি।

এক প্রশ্নের জবাবে ঢামেক হাসপাতালের পরিচালক বলেন, ঘটনাটি দুঃখজনক। সমস্যাটা কোথায় ছিল সেটি বের করার জন্যই তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। কমিটি আজকেও আমার সঙ্গে বসেছে। কেন এমন ঘটনা হলো তা বের করা হবে। আর এ ধরনের ঘটনা যাতে ভবিষ্যতে না ঘটে সেই অনুযায়ী ব্যবস্থাও নেওয়া হবে। ঘটনাটি মিরাকল। মেডিক্যাল সাইন্সে এমন ঘটনা হতেই পারে, অনেক জায়গায়ই হয়েছে। তবে আমরা দেখবো কারো কোনো অবহেলা ছিল কি না। এর আগেও আমাদের এখানে এমন একটি ঘটনা ঘটে ছিল। সেই ঘটনায় ওই চিকিৎসককে আমরা আর এখানে ট্রেনিং দেয়নি। এক পর্যায়ে তিনি দেশের বাইরে চলে গেছেন। তবে এটি ইচ্ছা করে কেউ করেনি।

নবজাতকের বাবা ইয়াসিন মোল্লা জানান, সকালে চিকিৎসকরা শিশুটিকে দেখেছেন। ওনারা আমাদের বলেছেন, সে এখনও ভালো আছে। চিকিৎসা চলছে কোনো ভয় নেই। পাশাপাশি আমার স্ত্রীর শারীরিক খোঁজখবরও নিয়েছেন তারা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশে

আক্রান্ত
১৭৮,৪৪৩
সুস্থ
৮৬,৪০৬
মৃত্যু
২,২৭৫

বিশ্বে

আক্রান্ত
৪৩,৩৫৫,১৬৬
সুস্থ
৩১,৯০৭,৮৬১
মৃত্যু
১,১৫৯,২০২
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

প্রযুক্তি সহায়তায় ইন্টেল ওয়েব